যশোরের সাগরদাঁড়িতে শুরু হয়েছে ৭দিনব্যাপী মধুমেলা

0
244

কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে যশোরের কেশবপুর উপজেলার সাগরদাঁড়িতে শনিবার (২০ জানুয়ারি) থেকে শুরু হয়েছে সাত দিনব্যাপী মধুমেলা। এ মেলা ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে। বিকেল সাড়ে ৩টায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে মধুকবির জন্মবার্ষিকী ও মধুমেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
মেলা উপলক্ষে সাগরদাঁড়ি মধুমঞ্চে প্রতিদিন কবির জীবনী ও তাঁর সাহিত্যকর্ম তুলে ধরা হবে। সঙ্গে থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। এ ছাড়া মেলায় গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী যাত্রাপালা, সার্কাস, পুতুল নাচ, মৃত্যুকূপে গাড়ি চালানো, যাদু প্রদর্শনী ও বিচিত্রা অনুষ্ঠানের আয়োজনও থাকছে। মেলার মাঠে বিসিক ও গ্রামীণ পণ্যের ছোট-বড় প্রায় আড়াই হাজার স্টল বসছে।
মেলা উপলক্ষে সপ্তাহখানেক আগে থেকে দেশি-বিদেশি পর্যটকের হৈ-হুল্লোড়ে মেতে উঠেছে সাগরদাঁড়ি। এর মধ্যে কবির জন্মগৃহ, মধুপল্লী, মধুমঞ্চ, পর্যটন কেন্দ্র ও সাগরদাঁড়ির ডাকবাংলো ঘষামাজা করে চুনকাম করা হয়েছে। কবি ভক্তদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য কেশবপুর শহর থেকে সাগরদাঁড়ি পর্যন্ত ১৩ কিলোমিটার রাস্তা মেরামতের কাজ সমাপ্ত করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলার মাঠসহ আশপাশ এলাকায় সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবের টহলও রাখা হয়েছে। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
মধুকবির জন্মবার্ষিকী ও মধুমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন যশোর জেলা প্রশাসক মো. আশরাফ উদ্দিন। এতে বিশেষ অতিথি থাকবেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বিরেন শিকদার এবং জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক। এ ছাড়া বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, মো. মনিরুল ইসলাম, কাজী নাবিল আহমেদ, রণজিৎ কুমার রায়, স্বপন ভট্টার্চায্য, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইব্রাহিম হোসেন, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, যশোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, যশোর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম, যশোর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, কেশবপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন, কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক শ্যামল সরকার।
জন্মবার্ষিকী ও মেলা উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মিজানূর রহমান জানান, জন্মবার্ষিকী ও মেলার প্রস্তুতি এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। মধুমেলায় দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার জন্য জেলা প্রশাসনসহ পুলিশ প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। এবার এ মেলা সুন্দর ও আনন্দময় হয়ে উঠবে। মধুমেলায় প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটবে বলে তিনি আশা করেন। এসএসসি পরীক্ষার কারণে গতবারের মতো এবারও মধুমেলা পাঁচদিন এগিয়ে এনে ২০ জানুয়ারি থেকে শুরু করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here