নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে পটুয়াখালীতে গণসংহতি আন্দোলনের সাংবাদিক সম্মেলন

0
248
hdr

স্টাফ রিপোর্টার ঃ পটুয়াখালীতে ইসি’র রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে পটুয়াখালী জেলা গণসংহতি আন্দোলন কমিটির নেতৃবৃন্দ।
৭ জুলাই শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে নির্বাচন কমিশনের রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা গণসংহতি আন্দোলন কমিটির আহবায়ক এস.এম আমজাদ হোসেন। তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেছেন, বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সকল নাগরিকের সংগঠন অধিকার স্বীকৃত রয়েছে। রয়েছে সকল নাগরিকের সকল নির্বাচনে অংশগ্রহন ও নির্বাচিত হবার অধিকার রয়েছে। নির্বাচন কমিশনের কাজ এই অধিকার ও অংশগ্রহন যাতে বিনাবাধায় ও বৈষম্যহীনভাবে হতে পারে তার ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করা। কিন’ নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন আইনে শর্তগুলো এমনভাবে করা হয়েছে যাতে করে মনে হতে পারে সকল নাগরিকের রাজনীতি করার ও দল গঠন করার সাংবিধানিক অধিকারকে বাস্তবায়ন নয় বরং তাতে নানা বাধা-বিপত্তি তৈরীই বিধিমালার উদ্দেশ্র। কিন’ দেশের বিদ্রমান আইনের ভেতরে থেকেই তার অপর্যাপ্ত ও অগনতান্ত্রিকতার বিরুদ্ধে গণসংহতি আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে।
জেলা গণসংহতি আন্দোলন কমিটির আহবায়ক এস.এম আমজাদ হোসেন আরও বলেন, ইসির বিধি অনুযায়ী শর্ত পূরন সাপেক্ষে গণসংহতি আন্দোলন রাজনৈতিক দল হিসাবে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে। পরবর্তীতে গত ৮ এপ্রিল পত্র মারফত নির্বাচন কমিশন তার পর্যবেক্ষন অনুযায়ী আবেদনে যে ঘাটতি বা সম্পূরক শর্তাদি পালনের শর্ত দেয় তাও গণসংহতি আন্দোলনের পক্ষ থেকে যথাযথভাবে নির্বাচন কমিশনের চাহিদা অনুযায়ী দলিলাদি বিষয়ে পূরন করা হলেও ইসি দরখাস্তকারীর দরখাস্তটি না-মঞ্জুর করে । ইসির এ অগনতান্ত্রিক, অস্বচ্ছ প্রক্রিয়ার তীব্র নিন্দা করে প্রতিবাদ করেন জেলা গণসংহতি আন্দোলন কমিটির আহবায়ক এস.এম আমজাদ হোসেনসহ নেতৃবৃন্দ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন বাউফল উপজেলা ও গলাচিপা উপজেলা গণসংহতি আন্দোলন কমিটির সদস্য সৌরভ ও সেলিম মৃধা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here