পটুয়াখালীতে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয় করন দাবীতে মানববন্ধন

0
241
All-focus

স্টাফ রিপোার্টার ঃ বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা জাতীয়করনসহ সাত দফা দাবীতে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারক লিপি পেশ কর্মসূচী পালন করেছে জেলা স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষক সমিতির ব্যানারে শিক্ষকরা।
২১ জুন রবিবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা জাতীয়করনসহ সাত দফা দাবীতে কেন্দ্রীয় কমিটির পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসাবে জেলা কমিটির আয়োজিত মানববন্ধন পালনকালে বক্তব্য রাখেন জেলা জেলা স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি মাওলানা মোঃ জসিম উদ্দিন, সাধারন সম্পাদক মোঃ রোকনুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান, অর্থ বিষংক সম্পাদক মাওলানা মোঃ আল আমিন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রচার সম্পাদক মোঃ সাইদুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মোঃ আবুল হাসেম ও মোঃ রফিকুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মোঃ কাসেম, আবুল বশার, মোঃ আল আমিন,নুর মোহাম্মদ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ১৯৭৮ সালে অর্ডিনেন্স ১৭(২) ধারা মোতাবেক মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এর শর্ত পূরন সাপেক্ষে রেজিঃ প্রাপ্ত হওয়ার পর থেকে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা সমূহ শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। ১৯৯৪ সনে একই পরিপত্রে রেজিস্ট্রার বেসরকারী প্রাইমারী ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন ৫০০ টাকা নির্ধারন করা হয়। পরবর্তীতে সরকার ধাপে ধাপে বেতন বৃদ্ধি হতে হতে ২০১৩ সনে ৯ জানুয়ারী বর্তমান মহাজোট সরকার ২৬১৯৩ টি বেসরকারী প্রাইমারী স্কুল জাতীয়করন করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সরকারী একই সিলেবাসে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয়। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় ইবতেদায়ী ৫ম শ্রেনী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অংশগ্রহন করে এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় সরকারে সকল কাজে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকরা অংশগ্রহন করেন। অথচ মাস শেষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ২২ থেকে ২৩ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন পায়। কিন্তু ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকগন তেমন কোন বেতন ভাতা পান না তবুও তারা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় শিক্ষকতা চালিয়ে আসছে। বক্তারা আরও বলেন, ২০১৮ সালে ১ লা জানুয়ারী থেকে ১৬ জানুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষক সমিতি অবস্থান ধর্মঘট ও অনশন চলাকালিন সময় সরকারের নির্দেশে সচিব মহোদয় আন্দোলন স্থলে এসে শিক্ষকদের দাবী মেনে নেয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু দীর্ঘ দুই বছরে তা বাস্তবায়ন হয়নি। দেশে ১৫১৯ টি ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকগন সর্বসাকুল্যে প্রধান শিক্ষক ২৫০০ টাকা ও সহকারী শিক্ষকগন ২৩০০ টাকা ভাতা পায় বাকি রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত মাদরাসারগুলোর শিক্ষকগন ৩৪ বছর যাবত বেতন ভাতা হতে বঞ্চিত। যা এই দ্রব্যমূল্যের বাজারে অমানবিক। বর্তমান বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর প্রভাবে সারা দেশে বেতন বঞ্চিত কর্মরত ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
মুজিব বর্ষে ইবতেদায়ী মাদরাসার দাবী সমূহ বাস্তবায়নে সরকারের কাছে বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর কাছে জোর দাবী জানান বক্তারা। পরে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরীর কাছে সাত দফা দাবী সম্বলিত একটি স্মারক লিপি হস্তান্তর করেন আন্দোলনকারী ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here